,
সংবাদ শিরোনাম :

সিলেট বেতারের উন্নয়ন প্রকল্প নেই, জেলা উন্নয়ন কার্য তালিকায় !

নিজস্ব প্রতিবেদক :: বেতারের প্রায় ৬৩ কোটি টাকার উন্নয়ন প্রজেক্টের খবর জানেন না স্থানীয় সংসদ সদস্য পরারাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন । তার অগোচরেই চলছে বেতার উন্নয়নের কাজ । সার্বিক বিষয় যেনে মন্ত্রী ক্ষোভ প্রকাশ করলেন ।

 

জেলা প্রশাসকও জানেন না প্রকল্পের খবর । আশ্চর্যজনক হলে সত্য, জেলা উন্নয়ন প্রকল্পের কার্য তালিকায় নেই বেতারের উন্নয়ন প্রকল্প । অথচো ইতিমধ্যে প্রকল্পের এসি প্ল্যান্টের কাজ শেষ । প্রায় ৮ কোটি টাকা খরচ দেখিয়ে,তা উত্তোলন করা হয়েছে বলেও জানা যায় । নিম্নমানের এসব কাজ নিয়েও আছে নানা প্রশ্ন ।

 

প্রকল্পের কাজ শুরু চলছে আট মাস ধরে । প্রকল্প পরিচালক প্রকল্প বাস্তবায়নাধীন এলাকায় সার্বক্ষনিক উপস্থিত থাকতে খোদ প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা আছে । অথচো প্রকল্প পরিচালক মুজিবুর রহমান কাজ শুরু থেকে এখন পর্যন্ত দু তিন বার এসেছেন খুব স্বল্প সময়ের জন্য । অনেকটা অভিভাবকহীন ভাবেই চলছে প্রকল্পের কাজ ।

 

পিডি মুজিবুর রহমান “জামাত” ঘড়ানার লোক বলেই বেতারে পরিচিত । অনেক অনিয়ম দূর্ণীতির হোতা এই ব্যক্তি সম্পর্কে জানেন আগারগাঁও বেতার ভবনের অনেকেই । কিন্তু মহাপরিচালক নারায়ন চন্দ্র শীল’র প্রত্যক্ষ মদদেই মুজিবুর রহমান বেপরোয়া । উন্নয়ন প্রকল্পের সবকিছুই নিয়ন্ত্রন করছেন । আর উপদেষ্টা হিসেবে আছেন মহাপরিচালক নারায়ন শীল এমন খবর এখন ভেসে বেড়াচ্ছে বেতারের বাতাসে ।

 

বেতারের আঞ্চলিক প্রকৌশলী মনোয়ার খান । সহকারী প্রকৌশলী মেহেরাজ আহমদ । দুজনই টেকনিশিয়ান থেকে প্রকৌশলী । এরাই এখন উন্নয়ন প্রকল্পের দেখভাল করছেন । মনোয়ার খান মানসিক রোগী । বিগত দিনে জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনষ্টিটিউট ও হাসপাতালে দীর্ঘ চিকিৎসা নিয়েছেন । বর্তমানেও নিয়মিত চেকআপ চালিয়ে যাচ্ছেন । একজন মানসিক রোগী কি করে একটি স্পর্শকাতর জায়গায় আঞ্চলিক প্রকৌশলীর দায়িত্ব পালন করেন ? তা রীতিমত আজব এক রহস্য ।

 

মেজেরাজ আহমদ দীর্ঘ ২০ বছর ধরে একই জায়গায় আছেন । লুটপাটে সিদ্ধহস্থ এই কৌশলী ব্যক্তির বিরুদ্ধে চরিত্রহীনতারও অভিযোগ রয়েছে । বিগত সময়ে এ নিয়ে তার বিরুদ্ধে একটি বিভাগীয় মামলাও ছিলো । চতুর মেহেরাজ উপরমহলকে খুশি করে তা থেকে অব্যাহতিও পেয়েছিলেন । বর্তমানে উন্নয়ন প্রকল্পের অনিয়ম ও দূর্ণীতির তিনি হচ্ছেন অন্যতম সহযোগী ।

Share Button

One response to “সিলেট বেতারের উন্নয়ন প্রকল্প নেই, জেলা উন্নয়ন কার্য তালিকায় !”

  1. Like!! Really appreciate you sharing this blog post.Really thank you! Keep writing.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ আপডেট

সম্পাদক ও প্রকাশক : এম. এম. শরীফুল আলম তুহিন
ইমেইল : expresstimes24@gmail.com
মোবাইল: ০১৭১২ ৭৪৭ ১৩৯ # ০১৯১৯ ৭৪৭ ১৩৯