,
সংবাদ শিরোনাম :

প্রকৌশলী মনোয়ার খান আজব এক রহস্য !

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: সিলেট বেতারের অনিয়ম, দূর্ণীতির মূল হোতা মনোয়ার খান একজন মানসিক রোগী ! তার অসংলগ্ন কথা বার্তা, আচার আচরন, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সাথে সৌজন্যহীনতা সে রোগেরই বহিঃপ্রকাশ, এমনটাই মনে করছেন বেতার সংশ্লিষ্টরা ।

 

অনেকটা এক ঘড়ে হয়েই আছেন প্রকৌশলী মনোয়ার । নিজ দপ্তর প্রকৌশল বিভাগের দায়িত্বে নিয়োজিতরাও দুরে থাকার চেষ্টা করছেন । নাম প্রকাশ না করার শর্তে তারই দপ্তরের জনৈক কর্তা বললেন “একজন বিকারগ্রস্থ লোক মনোয়ার খান” । ভালো মন্দ সব কথাতেই রিঅ্যাকশন দেখান । বার্তা বিভাগের একজনের মতে “পাগল পাগলামী করবে” এটাই স্বাভাবিক । চতুর্থ শ্রেনীর কর্মচারীরাও একান্ত বাধ্য না হলে তার ধারেকাছে ঘেসতে ভয় পায় । অনেকের মতে তিনি কোন স্বাভাবিক মানুষ নন, রীতিমত অস্বাভাবিক ।

 

জানা যায়, ২০১২ সালে জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইন্সটিউট মেন্টাল হেলথ ও হাসপাতালের তৎকালীন সহযোগী অধ্যাপক ডাঃ কে এম ফিরোজ’র তত্ত্বাবধানে তিনি মানসিক রোগ “সিজোফ্রেনিয়া”র চিকিৎসা নিয়েছেন । ডাঃ ফিরোজের ধানমন্ডিস্থ মনোজগৎ সেন্টারে প্রায় ২ বছর মনোয়ার খান চিকিৎসাধীন ছিলেন এবং থেরাপি নিয়েছেন । এখনও নিয়মিত চেকআপ করে থাকেন । সুস্থ থাকার জন্য নিয়মিত ঔষধ সেবন করতে হয় ।

 

মানসিক রোগ বিশেষজ্ঞদের মতে এ ধরনের রোগী খুব স্বাভাবিক আচরন করতে পারেনা । সহজেই উত্তেজিত হয়ে যায়, কাউকে বিশ্বাস করতে পারেনা । পাশাপাশি নিজেকে বিশেষ ক্ষমতাবান মনে করে এবং অন্যকে হেয় করে । সিজোফ্রেনিয়া এমন একটি রোগ যা নিয়ন্ত্রনে রাখা যায়, তবে পুরোপুরি নিরাময় যোগ্য নয় । নিয়মিত চেকআপ ও ঔষধ সেবন করলে ভালো থাকা যায় ।

 

বাংলাদেশ বেতার একটি স্পর্শকাতর গণমাধ্যম । প্রকৌশল বিভাগের গুরুত্ব অনেক বেশি । সামান্য অসাবধানতা অনেক বড় বিপর্যয় নিয়ে আসতে পারে । এই স্পর্শকাতর জায়গায় একজন মানসিক রোগী কি করে আঞ্চলিক প্রকৌশলীর মতো গুরু দায়িত্ব পালন করছেন-জনমনে সে প্রশ্ন এখন ঘুরপাক খাচ্ছে ।

 

এদিকে সিলেট বন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান এস এম সাজ্জাদ হোসেন বলেছেন ৬৫ টি গাছ কাটার কথা থাকলেও আঞ্চলিক প্রকৌশলী মনোয়ার খান ১৪৩ টি গাছ কর্তন করেছেন । এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে ।

 

সিলেট সদরের সহকারী বন সংরক্ষক জিএম আবু বকর সিদ্দিককে আহ্বায়ক করে গঠিত কমিটির অন্য দুই সদস্য হলেন হবিগঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক আবদুল্লাহ আল মামুন ও সিলেট রেঞ্জের ফরেস্ট রেঞ্জার দেলোয়ার হোসেন । তারা আজ ৩১ জুলাই থেকে তদন্ত কার্য শুরু করেছেন । আগামীকালও তারা তদন্ত করবেন । তদন্ত করার পর অভিযোগ প্রমানীত হলে-যার নির্দেশে সব গাছ কাটা হয়েছে বা টেন্ডার আহবান করা হয়েছে, অবশ্যই তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করা হবে । তিনি আশা করছেন এক সপ্তাহের মধ্যে এ বিষয়ে একটি সিন্ধান্তে উপনীত হওয়া সম্ভব হবে ।

Share Button

১২ responses to “প্রকৌশলী মনোয়ার খান আজব এক রহস্য !”

  1. Greetings! This is my 1st comment here so I just wanted to give a quick shout out and say I
    genuinely enjoy reading your posts. Can you suggest any other blogs/websites/forums that deal
    with the same subjects? Thanks a ton!

  2. Pretty section of content. I just stumbled upon your blog
    and in accession capital to say that I get in fact enjoyed account your
    weblog posts. Anyway I’ll be subscribing for
    your feeds or even I success you get admission to persistently fast.

  3. Good answer back in return of this matter with solid arguments and telling everything regarding that.

  4. Howdy! I know this is kinda off topic however I’d figured I’d ask.
    Would you be interested in trading links or maybe guest authoring a
    blog article or vice-versa? My blog discusses a lot of the same subjects as yours and I feel we could greatly benefit
    from each other. If you happen to be interested feel free to shoot me an email.
    I look forward to hearing from you! Wonderful blog by the way!

  5. Your means of explaining all in this paragraph is actually
    good, every one can without difficulty understand it, Thanks
    a lot.

  6. What’s up, just wanted to tell you, I loved this article.
    It was inspiring. Keep on posting!

  7. … [Trackback]

    […] Find More Information here on that Topic: expresstimes24.com/?p=10134 […]

  8. … [Trackback]

    […] Here you will find 49424 more Info on that Topic: expresstimes24.com/?p=10134 […]

  9. … [Trackback]

    […] Find More Information here to that Topic: expresstimes24.com/?p=10134 […]

  10. … [Trackback]

    […] Find More to that Topic: expresstimes24.com/?p=10134 […]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বশেষ আপডেট

সম্পাদক ও প্রকাশক : এম. এম. শরীফুল আলম তুহিন
ইমেইল : expresstimes24@gmail.com
মোবাইল: ০১৭১২ ৭৪৭ ১৩৯ # ০১৯১৯ ৭৪৭ ১৩৯